লন্ডনে আগামী ২৪ অক্টোবর নবম মুসলিম চ্যারিটি রান

আগামী ২৪ অক্টোবর রোববার পূর্ব লন্ডনের ভিক্টোরিয়া পার্কে নবম মুসলিম চ্যারিটি রান অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে।
গত বছর কভিডের কারণে অনুষ্ঠিত না হলেও এ বছর অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে, নবম মুসলিম চ্যারিটি রান। ইস্ট লন্ডন মসজিদের উদ্যোগে পূর্ব লন্ডনের ভিক্টোরিয়া পার্কে অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া এ রানে অন্যান্য বছরগুলোর মতোই ওইদিন মানুষ পার্কের ভেতরে নির্ধারিত রুটে ৫ কিলোমিটার পথ দৌঁড়াবে এবং নিজের পছন্দের চ্যারিটির জন্য ফান্ডরেইজ করবে।
এ উপলক্ষে শুক্রবার দুপুরে ইস্ট লন্ডন মসজিদের মারিয়াম সেন্টারে এক সংবাদ সম্মেলন আয়োজন করা হয়। এতে সম্মেলনে মুসিলম চ্যারিটি রান সম্পর্কে বিস্তারিত তুলে ধরেন ইস্ট লন্ডন মসজিদের ফাইন্যান্স এন্ড কমিউনিটি এনগেইজমেন্ট ডাইরেক্টর দেলওয়ার খান ও ফান্ডরেইজিং ম্যানেজার তজম্মুল আলী।
এসময় কমিউনিটি নেতৃবৃন্দের মধ্যে বক্তব্য রাখেন গ্রেটার সিলেট কাউন্সিল ইউকের চেয়ারপার্সন ব্যারিস্টার আতাউর রহমান, বিশিষ্ট কমিউনিটি নেতা সাংবাদিক কে.এম আবুতাহের চৌধুরী ও বিশিষ্ট আইনজীবী ব্যারিস্টার নাজির আহমদ।
এ সম্মেলনে দেলওয়ার খান বলেন, স্বাস্থ্যকর জীবনযাপনে কমিউনিটির মানুষকে উদ্ধদ্ধ করার লক্ষ্যে ২০১২ সালে শুরু হয় ‘রান ফর ইউর মস্ক’ ক্যাম্পেইন। এই ক্যাম্পেইন কমিউনিটিতে ব্যাপক সাড়া ফেলে । এটি হয়ে ওঠে কমিউনিটির মানুষের জন্য বছরের একটি সেরা ইভেন্ট । তখন এই কর্মসূচির মাধ্যমে শুধু ইস্ট লন্ডন মসজিদের জন্য ফান্ডরেইজ করা হতো । তিন বছর পর ২০১৫ সালে অন্যান্য চ্যারিটি সংগঠনকে ফান্ডরেইজিংয়ের সুযোগ করে দিতে ক্যাম্পেইনের নাম পরিবর্তন করে করা হয় ‘মুসিলম চ্যারিটি রান’। সেই থেকে প্রতিবছর বিভিন্ন চ্যারিটি সংগঠন মুসলিম চ্যারিটি রানে অংশগ্রহণের মাধ্যমে নিজ নিজ চ্যারিটির জন্য ফান্ডরেইজ করে আসছেন । প্রতিবছর ইস্ট লন্ডন মসজিদসহ ২৫ থেকে ৩০টি চ্যারিটি সংগঠন অংশগ্রহণ করে থাকে।
২০১৯ সালে করোনা মহামারি শুরু হওয়ার আগে অনুষ্ঠিত সর্বশেষ মুসলিম চ্যারিটি রানে ২৬টি সংগঠন অংশগ্রহণ করে ১শ ৪৩ হাজার পাউন্ড সংগ্রহ করে। চলতি বছরের চ্যারিটি রানে অংশ গ্রহণের জন্য এ পর্যন্ত ২০টি সংগঠন নাম রেজিস্টার করেছে।
দেলওয়ার খান আরো বলেন, আমাদের কমিউনিটির মানুষের মধ্যে শরীরচর্চার অভ্যেস কম । তাই আমরা চাই বছরের একটি দিন মুসলিম চ্যারিটি রানে অংশগ্রহণ করার মধ্য দিয়ে মানুষ হাঁটাহাটি কিংবা দৌড়ানোর অভ্যেস গড়তে শুরু করবে । কারণ স্বাস্থ্যকর জীবনযাপনে শরীরচর্চার কোনো বিকল্প নেই। তিনি কমিউনিটির মানুষকে এবারের চ্যারিটি রানে অংশ গ্রহণের আহবান জানান।
ফান্ডরেইজিং ম্যানেজার তজম্মুল আলী বলেন, আমাদের রেজিস্ট্রেশন কার্যক্রম পুরোদমে চলছে। মানুষ প্রতিদিনই বিভিন্ন চ্যারিটি সংগঠনের পক্ষে তাঁদের নাম রেজিস্টার করছেন । আগামী ২২ অক্টোবর শুক্রবার পর্যন্ত রেজিস্ট্রেশন কার্যক্রম চলবে। এই সময়ের মধ্যে মুসলিম চ্যারিটি রান ওয়েবসাইট ভিজিট করে যেকেউ নিজেদের নাম রেজিস্টার করতে পারবেন ।
তজুম্মুল আলী আরো জানান, মুসলিম চ্যারিটি রানে ৬টি ক্যাটাগরিতে অংশ গ্রহণ করা যাবে । অনুর্ধ ১২ বছর, ১৩ থেকে ১৭ বছর, ১৮ থেকে ২৪ বছর, ২৫ থেকে ৩৪ বছর, ৩৫ থেকে ৫০ বছর ও ৫১ থেকে উপরের বয়সীরা অংশগ্রহণ করতে পারবেন । ১২ বছর পর্যন্ত মেয়েরাও অংশগ্রহণ করতে পারবে। এটি হবে মুলত একটি ফ্যামিলি ইভেন্ট। পুরুষ মহিলা শিশু-কিশোর সকলেই ভিক্টোরিয়া পার্কে সমবেত হয়ে যারা দৌড়াবেন তাদেরকে উৎসাহিত করবেন।
তিনি আরো জানান, প্রত্যেককে মুসলিম চ্যারিটি রানের মনোগ্রামখচিত টি-শার্ট, চিপ টাইমিং ও ম্যাডেল দেয়া হবে। তাছাড়া প্রত্যেক গ্রুপের বিজয়ীদের জন্য থাকবে ট্রফি। এ বছরের চ্যারিটি রানে স্পনসর হিসেবে রয়েছে লঞ্চগুড ফান্ডরেইজিং প্লাটফর্ম, আল-খায়ের ফাউন্ডেশন, হিউম্যান রিলিফ ফাউন্ডেশন ও হাশম্যাট হেলথ লিমিটেড।
সাপোর্টার হিসেবে রয়েছে বৃটিশ মুসলিম মেডিক্যাল অ্যাসোসিয়েশন, রিকানেকটিং আওয়ার কমিউনিটি থ্রো কাইন্ডন্যান ও ইস্ট লন্ডন কার্ডিওভাসকুলার ডিজিজ প্রিভেনশন।
উল্লেখ্যযোগ্য চ্যারিটি সংস্থার মধ্যে রয়েছে ইস্ট লন্ডন মস্ক, মুনতাদা এইড, হিউম্যান অ্যাপিল, ওয়ান ন্যাশন, হ্যামলেটস ওয়ে মস্ক, হিউম্যান এইড ইউকে, হ্যালপ ইয়াতিম, লনলী অরফান, লন্ডন ইসলামিক স্কল, গ্লোবাল এইড ট্রাস্ট, স্টেপনি শাহজালাল মস্ক, গ্লোবাল ডেভোলাপমেন্ট ফাউন্ডেশন, লাইম হাউজ মসজিদ, হিউম্যান কেয়ার ইনিশিয়েটিভ, লন্ডন ইস্ট একাডেমি এন্ড আল-মিজান স্কল, বক্সার ফিপটিন একাডেমী।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *