শনিবার, ৫ই ডিসেম্বর, ২০২০ ইং, ২১শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
আজ শনিবার | ৫ই ডিসেম্বর, ২০২০ ইং

বাংলাদেশেও বিক্ষোভ অব্যাহত

ফ্রান্স এবং মুসলিম রাষ্ট্রের মধ্যে বৈরিতা যে কারনে

শুক্রবার, ৩০ অক্টোবর ২০২০ | ১০:২৪ পিএম | 160 বার

ফ্রান্স এবং মুসলিম রাষ্ট্রের মধ্যে বৈরিতা যে কারনে

ফ্রান্স এবং তুরস্কসহ অন্যান্য মুসলিম রাষ্ট্রের মধ্যে চলছে বৈরিতা।  ফ্রান্স কেন অস্বাভাবিক একটি সময়ের ভেতর দিয়ে যাচ্ছে? ফ্রান্সের বিরুদ্ধে কেন গোটা মুসলিম বিশ্ব ? ( নীচে ভিডিও সংবাদ যুক্ত )  

গত ১৬ অক্টোবর প্যারিসের উপকণ্ঠে দেশটির এক স্কুল শিক্ষকের শিরচ্ছেদ করে ১৮ বছর বয়সী এক কিশোর। মহানবী হযরত মুহাম্মদ (স.)-এর বিতর্কিত কার্টুন শিক্ষার্থীদের প্রদর্শনের কারণে ক্ষুব্ধ ওই কিশোর স্কুল শিক্ষককে হত্যা করেন। পরে ফ্রান্সের সরকার ওই স্কুল শিক্ষককে দেশটির সর্বোচ্চ মরণোত্তর পদকে ভূষিত এবং বিভিন্ন ভবনের গায়ে মহানবী হযরত মুহাম্মদ (স.)-এর বিতর্কিত সেই কার্টুনের প্রদর্শন শুরু করে। ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট রাষ্ট্রীয় পৃষ্ঠপোষকতায় এই কার্টুন প্রদর্শনের নির্দেশ দেন। ফরাসি প্রেসিডেন্টর এই অবস্থানের প্রতিবাদে আরব উপসাগরীয় অঞ্চলসহ মুসলিম বিশ্বের বিভিন্ন দেশে ফ্রান্সের পণ্য বর্জনসহ নিন্দা ও প্রতিবাদের ঝড় ওঠে।

সমগ্র মুসলিম বিশ্বের মতো বাংলাদেশের বিভিন্ন স্থানেও ফ্রান্সের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ সমাবেশ অব্যাহত রয়েছে। আজ শুক্রবার বাদ জুম্মা ফ্রান্সের একজন স্কুল শিক্ষক মহানবী (স.) কে ব্যঙ্গচিত্র তৈরির প্রতিবাদে আজ বাংলাদেশের বিভিন্ন জেলায় বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছে জনতা। এ সময় ফ্রান্সের প্রেসিডেন্টের কুশপুত্তলিকা দাহ করা হয়। সংক্ষিপ্ত সমাবেশে বক্তারা ফ্রান্সের পণ্য বর্জন করার জন্য সাধারন মানুষের প্রতি আহবান জানান। একই সঙ্গে ফ্রান্সের সঙ্গে বাংলাদেশের কূটনৈতিক সম্পর্ক ছিন্ন করা, সংসদে নিন্দা প্রস্তাব জ্ঞাপন করা, বাংলাদেশ থেকে ফ্রান্সের দূতাবাস সরিয়ে দেয়াসহ সরকারের প্রতি কয়েক দফা দাবি উপস্থাপন করেন। এসব দাবি না মানলে কঠোর কর্মসূচির ঘোসনা দেন তারা।

সমাবেশে বক্তারা ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ম্যাক্রোন এর কঠোর সমালোচনা করেন এবং মুসলিম বিশ্বের সবচেয়ে সম্মানিত ব্যক্তি হযরত মোহাম্মদ (সঃ) কে উদ্দেশ্য করে করা সকল ব্যঙ্গচিত্র অবিলম্বে অপসারণ পূর্বক ক্ষমা চাওয়ার দাবী করা হয়।

ঢাকা মালিবাগ শহিদী জামে মসজিদের সামনের সমাবেশ থেকে আমাদের প্রতিনিধি চঞ্চল চিরন্তন জানান, কোন ধরনের অপ্রীতিকর পরিস্থিতি এড়ানোর জন্য পুলিশ সদস্যরা ঘটনাস্থলে আগে থেকেই উপস্থিত ছিল। মসজিদের সামনে কিছুক্ষন অবস্থান করার পর একটি বড় মিছিল জাতীয় মসজিদ বায়তুল মুকাররমের উদ্দেশ্যে রওয়ানা হয়।

 

ভিডিও সংবাদঃ ফ্রান্সের সরকার আর মুসলিম বিশ্ব কেন পরস্পর বিরোধী?


সর্বশেষ  
জনপ্রিয়  
ফেইসবুক পাতা