রবিবার, ৬ই ডিসেম্বর, ২০২০ ইং, ২২শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
আজ রবিবার | ৬ই ডিসেম্বর, ২০২০ ইং

৪ মাস আইসিইউ-তেঃ করোনা জয়ী বাংলাদেশী দেলোয়ার

রবিবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০ | ১০:৩৩ এএম | 95 বার

৪ মাস আইসিইউ-তেঃ করোনা জয়ী বাংলাদেশী দেলোয়ার

দীর্ঘ ৬ মাস চিকিৎসাধীন থাকার পর লন্ডনের রয়েল লন্ডন হাসপাতাল থেকে ছাড়া পেলেন ব্রিটিশ বাংলাদেশি দেলোয়ার হোসেন। ব্রিটেনের চিকিৎসকরা তাঁর এই করোনা জয়কে অলৌকিক হিসাবে উল্লেখ করেছেন। প্রায় ৪ মাস আইসিইউতে থেকে করোনা জয় করে সুস্থ হয়ে ফিরে যাওয়ার আর কোনো রেকর্ড তাদের কাছে নেই। রয়েল লন্ডন হাসপাতালের সবচেয়ে বেশি সময় চিকিৎসাধীন থাকা করোনা রোগী ছিলেন দেলোয়ার। এজন্য তাঁর বিদায়টা ছিলো আবেগ আপ্লুত, আনুষ্ঠানিকতাপূর্ণ যা শুধু দেলোয়ার হোসেনের জন্যই হয়েছে।হাসপাতালের ডাক্তার, নার্স, কর্মকর্তা কর্মচারী সহ সবই আনন্দ উল্লাসে হাত তালির মাধ্যমে দিলোয়ার হোসেনকে বিদায় জানায়।

পেশায় উবার চালক দেলোয়ার হোসেন করোনাভাইরাস মহামারির শুরুতেই এপ্রিল মাসে প্রচণ্ড বমি এবং শ্বাসকষ্ট নিয়ে রয়েল লন্ডন হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন। বাবার করোনা জয়ে দেলোয়ার হোসেনের মেয়ে আবেগ আপ্লুতো হয়ে পরেন। তিনি বলেন, বাবাকে সুস্থভাবে বাসায় নিতে পারছি এটাই আমাদের সবচেয়ে আনন্দ।

করোনাভাইরাস আক্রান্ত সম্পর্কে দেলোয়ার বলেন, আমি এ বছরের প্রথম দিকে করোনায় আক্রান্তের কিছু দিন পূর্বে উমরাহ করে এসেছি। এছাড়া আমি একজন ট্যাক্সি ড্রাইভার। লক ডাউনে খুব বেশি কাজ করি নাই। তবে কিভাবে আক্রান্ত হলাম বলতে পারছি না। বাসায় বেশ কয়েকবার বমি হয়েছে জ্বর অনুভব করছি। বমিই আমাকে বেশি অস্থির করে ছিলো। যখন কষ্ট আর সহ্য হচ্ছিলো না তখন আমাকে রয়েল লন্ডন হাসপাতালে নিয়ে আসে সেই থেকে প্রায় ৫ মাস ২০ দিন আছি  হাসপাতালেই ছিলাম। উল্লেখ্য, দেলোয়ার হোসেন ১৭০ দিন হাসপাতালে ছিলেন তার মধ্যে ১১৫ দিনই অজ্ঞান অবস্থায় নিবিড় পর্যবেক্ষণ  ইন্টেনসিভ কেয়ারে ছিলেন।

তিনি বলেন, আমার বেঁচে থাকা হবে কি না। আবার যে সুস্থ হবো এটা কখনো বিশ্বাস করতে পারি নাই। কিন্তু আল্লাহর রহমতে এবং হাসপাতালের সবার আন্তরিক সেবায় আমি আমার জীবন ফিরে পেয়েছি। তবে পুরোপুরি সুস্থ কখন হবো তা আল্লাহ জানেন। এখনো ভালোভাবে শক্ত কিছু খেতে পারি না। শুধু তরল খাদ্য খেতে হয়। তবে ডাক্তার বলেছেন, ধীরে ধীরে সেরে উঠবে। সময় লাগবে সুস্থ হতে। সবচেয়ে বেশি সমস্যা হচ্ছে গলার ব্যাথা। মুখ দিয়ে খেতে পারতাম না বলে গলার খাদ্যনালি কেঁটে পাইপ দিয়ে তরল খাবার দিয়েছে। এখনো সেই ভাবেই খেয়ে যাচ্ছি।

মৃত্যুর একেবারে কাছাকাছি থেকে ফিরে আসা দেলোয়ার হোসেন। হাসপাতালের ডাক্তার নার্সদের প্রতি যেমন কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন তেমনি ডাক্তার নার্সরাও দেলেয়ারের প্রতি সহানুভূতি প্রকাশ করেন। চার সন্তানের জনক, বর্তমানে পূর্ব লন্ডনের স্টেপনি গ্রিনে বসবাসকারী দেলোয়ার হোসেনের গ্রামের বাড়ি বাংলাদেশের সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর উপজেলার হুসনা ফাতেমাপুর গ্রামে।

ব্রিটেনে এ পর্যন্ত করোনাভাইরস আক্রান্ত হয়েছেন প্রায় ৩ লাখ ৮৬ হাজার এবং মৃত্যু বরণ করেছেন ৪১ হাজার ৭৩২ জন। যারা করোনাভাইরাস মহামারি থেকে সুস্থ হয়েছেন তাদের মধ্যে একজন ভাগ্যবান ব্যক্তি হলেন দেলোয়ার হোসেন। মৃত্যুর একেবার কাছে থেকে ফিরে এসেছেন তিনি।

সুত্রঃ কা.ক


সর্বশেষ  
জনপ্রিয়  
ফেইসবুক পাতা