শুক্রবার, ৩০শে অক্টোবর, ২০২০ ইং, ১৫ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
আজ শুক্রবার | ৩০শে অক্টোবর, ২০২০ ইং

৫ অক্টোবর থেকেই

বিদেশী ছাত্রদের জন্য আরো সহজ হচ্ছে ব্রিটিশ ভিসা

শুক্রবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২০ | ১২:০০ পিএম | 5834 বার

বিদেশী ছাত্রদের জন্য আরো সহজ হচ্ছে ব্রিটিশ ভিসা

বিদেশী ছাত্রদের আকর্ষণ করতে আরো নতুন কিছু নিয়ম সংযোজন ও আগের বহু আলোচিত ও সমালোচিত কঠিন নিয়ম শিথিল করছে ব্রিটেন সরকার। এতে করে পূর্বের চেয়ে আরো সহজ হবে ব্রিটিশ স্টুডেন্ট ভিসায় এদেশে আগমনে ইচ্ছুক ছাত্রছাত্রীদের জন্য।

আগামী বছরের ১লা জানুয়ারী থেকে কার্যকর হবে ইউরোপীয় ছাত্র-ছাত্রীদের জন্য আর নন-ইউরোপিয়ানদের জন্য এবছরের  ৫ অক্টোবর থেকেই প্রযোজ্য হবে  ইমিগ্রেশনের নতুন নিয়ম।

GETTY IMAGE

হোম অফিস স্টুডেন্ট ভিসার বিধিতে যে পরিবর্তন এনেছে, তা হচ্ছেঃ

১)  স্টুডেন্ট ভিসার ৮ বছরের সর্বোচ্চ সীমা তুলে দেওয়া হচ্ছে পিএইচডি শিক্ষার্থীদের জন্য

২) ইংলিশ টেস্টের বাধ্যবাধকতার বিষয়টিও সংশ্লিষ্ট কলেজের ওপর ছেড়ে দিয়েছে হোম অফিস

৩) এক বছর যাবত অধ্যয়নরত বিদেশী শিক্ষার্থীদের মেইনটেন্যান্স ফান্ড দেখাতে হবে না

৪) একই সাথে পোস্ট স্টাডি শেষে চাকরির প্রস্তাব পেলে সেখানে যোগ দিতে পারবেন বিদেশী শিক্ষার্থীরা।

৫) অন্য ভিসা ক্যাটাগরি যেমনঃ স্পাউস ভিসা, ইনভেস্টর, টিয়ার ওয়ান থেকে স্টুডেন্ট ভিসায় পরিবর্তন করতে পারবে ( টুরিস্ট, ডোমেস্টিক ওয়ার্কার ও ডিস্ক্রিসনারী  লিভ ভিসা ক্যাটাগরি ছাড়া ) 

এছাড়াও আগমনের পূর্বে মেইনটেন্যান্স ফান্ডের ইলেকট্রনিক কপি গ্রহণযোগ্য হবে ও ব্যাংকের লিস্টও আরো বাড়ানো হবে। 

গত ১০ সেপ্টেম্বর হোম অফিস  ইউরোপীয় এবং ইউরোপের বাইরের দেশ থেকে আসা শিক্ষার্থীদের জন্য নতুন নিয়মে স্টুডেন্ট ভিসার আবেদন করার বিধি ঘোষণা দিয়েছে বৃটেনের  হোম অফিস।

নতুন বিধি প্রসঙ্গে লন্ডনের এক স্টুডেন্ট কনসালটেন্সি প্রতিষ্ঠানের কর্ণধার জানান,  ব্রিটেনের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোকে শিক্ষার্থীদের ইংলিশ টেস্টের ক্ষেত্রে হোম অফিস স্বাধীনতা দেয়ায় ইউরোপের বাইরে থেকে আসতে ইচ্ছুকদের জন্য দারুন সুবিধা হলো।

তবে এক আইনজীবি এ প্রসঙ্গে বলেন, শিক্ষার্থীদের ইংলিশ টেস্টের ক্ষেত্রে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোকে সতর্কতা অবলম্বন করতে পারে। আগে এ নিয়মটি চালু থাকলেও হোম অফিস পরবর্তীতে এটি রহিত করে।

তিনি আরো জানান, স্টুডেন্ট ভিসায় সর্বোচ্চ ৮ বছর থাকতে পারার ব্যাপারটি তুলে দেয়ায় শিক্ষার্থীরা আরো বেশি সময় ব্রিটেনে অধ্যয়ন করতে পারবে এবং আইন মেনে ১০ বছর বসবাসের পর স্থায়ী হওয়ার আবেদনের পাশাপাশি  যেকোন ডিগ্রী শেষে কাজের প্রস্তাব পেলে ব্রিটেনে থাকারও সুযোগ সৃষ্টি হয়েছে। এ সুবিধা গুলো আগের ঘোষিত সুবিধার সাথে যুক্ত হলো।

উল্লেখ্য,  ব্রিটিশ হোম অফিস গতবছরের সেপ্টেম্বরে ঘোষণা করে যে, স্নাতক ডিগ্রি অর্জনের পর কর্মসংস্থানের জন্য দুই বছর যুক্তরাজ্যে থাকতে পারবেন বিদেশি শিক্ষার্থীরা। যা ২০১২ সালে তৎকালীন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী টেরিজা মে’র নেয়া সিদ্ধান্তকে পাল্টে দিয়েছিল। কারন, টেরিজা মে নিয়ম করেছিলেন যে, স্নাতক ডিগ্রী অর্জনের পর বিদেশি শিক্ষার্থীরা চার মাসের বেশী ব্রিটেনে অবস্থান করতে পারবেন না।

 


সর্বশেষ  
জনপ্রিয়  
ফেইসবুক পাতা